মানবতা দেখালেন ডাক্তার সায়মা আফরোজ ইভা

118

মাসুম বিল্লাহ: নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে বালুর নিচে চাপা পড়ে তানভীর( ৮) নামের এক শিশু গুরুত্বর আহত হলে দ্রুত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও নিয়ে আসলে ডাক্তারের সিদ্ধান্ত ও তার আন্তরিকতায় বেঁচে গেছে শিশুটি । তাকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হলেও পরে তাকে ঢাকা পুঙ্গ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
সোমবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে কয়েকজন শ্রমিক ও স্থানীয়রা আহত তানভীরকে একটি সিএনজিতে করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে।
এসময় দ্রুত ছুটে আসেন হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: সায়মা আফরোজ ইভা। তিনি শিশুটির অবস্থা দেখে আঁতকে উঠেন এবং তার অবস্থা গুরুত্বর দেখে এবং সারা শরীরে বালু দেখে দ্রুত সকল চিকিৎসককে বাইরে ডেকে আনেন আর শিশুটির অবস্থা পর্যালোচনা করেন। শিশুটিকে আগে পরিষ্কার করিয়ে নিজে কাপড় কিনে দেন, তোয়ালে দেন এবং নিজে টাকা দিয়ে ও ফ্রী এ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করে তাকে ঢাকা মেডিকেলে প্রেরণ করেন। সাথে লোকও দিয়ে দেন শিশুদের যেন কোন সমস্যা না হয় সেজন্য। এ ছাড়াও কিছুক্ষণ পর পরই খবর নেন শিশুটির।
জানা যায়, সকালে উপজেলার ব্রাহ্মণদী ইউনিয়নের মারওয়াদী থেকে মনোহরদী পর্যন্ত সড়কের কাজের মাঝে খেলতে গিয়ে বালুচাপা পড়ে শিশুটি। পরে আশেপাশের আরো কয়েকটি শিশু বালুর কাজ করা ভেকুর চালককে বিষয়টি জানালে ভেকু দিয়েই তাকে টেনে বালু থেকে তোলা হয়। বালু থেকে উঠানোর পরে শ্রমিকরা ও কয়েকজন এলাকাবাসী মিলে শিশুটিকে দ্রুত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। এদিকে শিশুটিকে মানবিকভাবে চিকিৎসা দেয়ার পাশাপাশি দ্রুত ঢাকা পাঠাতে হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সায়মা আফরোজ ইভার আন্তরিকতায় উপস্থিত সকলেই খুশি হন এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এমন ডাক্তার আছে বলেই সকলেই গর্বিত বোধ করেন। এর আগেও একাধিকবার এমন মানবিকতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তিনি। যেকোন রোগীর পাশে থেকে তিনি সবসময় সেবা দেন বলে এখানে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরা জানান। শিশুটি উপজেলার ব্রাক্ষন্দী ইউনিয়নের ডহর মরুয়াদী গ্রামের প্রবাসী দেলোয়ারের ছেলে।
হাসপাতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সায়মা আফরোজ ইভা জানান, আগে শিশুটির চিকিৎসা প্রয়োজন। তার অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় দ্রুত তাকে ঢাকা পাঠানো হয়েছে।

SHARE

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

four − two =