রাজধানীতে অস্ত্র ব্যবসায়ী গ্রেফতার

104

ঢাকা: ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট মহাখালীতে অভিযান চালিয়ে ১০টি অাগ্নেয়াস্ত্র ও ১১৮৫ রাউন্ড গুলিসহ মোহাম্মদ অালী বাবুল (৫৭) নামে এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতার বাবুল মেসার্স নেত্রকোনা অামর্স কোম্পানী নামে বৈধ অস্ত্রের দোকানের স্বত্ত্বাধিকারী।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, বৈধ ডিলারের কাছ থেকে অস্ত্র কিনে অবৈধভাবে বনদুস্যদের কাছে অস্ত্র বিক্রি করে আসছিল।

এর আগে গত ১১ জুন মেসার্স নেত্রকোনা আর্মস কোং এর স্বত্তাধিকারী মোহাম্মদ আলী বাবুলকে বৈধ কাগজপত্রবিহীন একটি পিস্তল একটি রিভলভার ১২৫ রাউন্ডগুলিসহ মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে গ্রেফতার করে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের স্পেশাল অ্যাকশন গ্রুপের একটি টিম। এরপর তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর উঠে আসে আর অবৈধ অস্ত্রগুলি মজুদ ও বিক্রির তথ্য।

সংবাদ সম্মেলনে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেন, গত ১৫ মে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে মো. জাহিদুল আলম কাদিরকে ও তার স্ত্রী মাসুমা আক্তারকে গাবতলী এলাকা থেকে অস্ত্র-গুলিসহ গ্রেফতার করা হয়। জাহিদুল আলম কাদিরের ময়মনসিংহের বাসা থেকে উদ্ধার করা হয় বেশকিছু অস্ত্র-গুলি।

জাহিদুল আলম কাদির তার স্ত্রী মাসুমা আক্তার জিজ্ঞাসাবাদে আরও কয়েকজন বৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ীর অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায় জড়িত থাকার বিষয়টি উঠে আসে। এরপর গত ১১ জুন গ্রেফতার করা হয় অস্ত্র ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী বাবুল। এসময় ২২ বোরের রাইফেল একটি, এক নলা বন্দুক ৪টি, ২২ বোরের পিস্তল ২টি, ৭.৬৫ বোরের পিস্তল একটি, ৩২ বোরের রিভলবার ২টি ও মোট ১১৮৫ পিস গুলি উদ্ধার করা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে, অস্ত্র ব্যবসায়ী মোহাম্মদ আলী বাবুল আগ্নেয়াস্ত্রের বৈধ ডিলারশিপ থাকলেও অধিক মুনাফার লোভে দীর্ঘদিন ধরে সে অবৈধপন্থায় অস্ত্র কেনাচবেচা করে আসছিল। ময়মনসিংহ ছাড়াও তিনি রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও বিশেষ করে খুলনার সুন্দরবনের বনদস্যুদের কাছে অস্ত্রগুলো বিক্রি করতেন। মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে তিনি নিজেই পৌঁছে দিতেন সব অস্ত্র-গুলি। গ্রেফতারের দিনও তিনি যাচ্ছিলেন অস্ত্র বিক্রি করতেন।

SHARE

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here

8 − eight =